Close

বাসায় বসেই জাতীয় পরিচয় পত্রের ভুল সংশোধন করার সহজ উপায়

আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই? অাশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে আপনাদের সাথে শেয়ার করবো কীভাবে ঝামেলা ছাড়াই সহজ ভাবে বাসায় বসে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের (NID Card) এর ভুল সংশোধন করবেন। অনেকেই জানতে চেয়েছেন, বলেছেন বুঝতে পারছেন না তাদের জন্য খুব উপকার হবে। তাহলে দেরি না করে চলেন শুরু করা যাক।

বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে আপনার একটি জাতীয় পরিচয় পত্র থাকাটা জরুরী বিষয়। তা না হলে আপনি অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ কিংবা প্রাতিষ্ঠানিক যেকোনো কাজে বাঁধার সম্মুখিন হবেন৷ ধরেন আপনার একটি জাতীয় পরিচয় পত্র আছে কিন্তু সেটিতে অনেক ভুল রয়েছে জন্ম তারিখ ভুল, আপনার নামের ভুল, বাবা মা র নামের ভুল তাহলে আপনি এই তথ্য ভুলের কারণে বিভিন্ন কাজে বাঁধার সম্মুখীন হবেন। জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করার জন্য যে সকল নিয়ম গুলো রয়েছে সেগুলো আপনাদের সহজ করে বুঝিয়ে দিচ্ছি।

NID Card সংশোধন করার জন্যঃ

১. প্রথমেই আপনাকে যথাযথ প্রমান সহ ডকুমেন্টস এর স্ক্যানকপি ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে।

২. যদি আপনার ডকুমেন্টের স্ক্যান কপি মোবাইলে নিয়ে আসেন তাহলে বাসায় বসেই করতে পারবেন।

৩. জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করার জন্য সাধারণত অনলাইন সার্ভিস চার্জ ১০০ এর বেশি হয় তাহলে আপনি যে ভিত্তিতে NID Card সংশোধন করেছেন তার উপর টাকা নির্ধারণ করা হবে।

৪. জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড সহ যাবতীয় কাজ করা হয় https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/ এই ঠিকানায়।

৫. আপনি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর যদি দেখেন আপনার Account Registration করা আছে তাহলে আর Registered করতে হবে না। লগিন করলেই হবে৷ যদি Account না থাকে তবে আপনাকে অবশ্যই Account করতে হবে।

৬. তারপর যেসকল ধাপ গুলো আছে সেগুলো অনুসরণ করবেন এবং সবগুলো তথ্য সঠিক ভাবে প্রদান করবেন৷

৭. তারপর NID ওয়ালেটের কাজ সম্পন্ন করতে হবে।

৮. আপনার অনলাইনের কাজ শেষ হলে আপনার প্রোফাইল দেখতে পারবেন সাথে সাথে ওপেন হয়ে যাবে । তারপর লগিন করে প্রোফাইলে প্রবেশ করবেন।

৯. প্রোফালের ভিতরে তথ্যের জায়গায়  আপনি সাধারণ তিন ধরনের তথ্য দেখতে পাবেন যথাঃ ব্যক্তিগত তথ্য,  ঠিকানা সংক্রান্ত, অন্যান্য তথ্য।

১০. তারপর আপনি যে তথ্য সংশোধন করবেন সেই ঘরে যাবেন এবং উপরের ডানদিকে দেখতে পাবেন এডিট অপশন। সেখানে আপনি আপনার সঠিক তথ্য গুলো ভালোভাবে দিবেন এবং পরবর্তী ধাপে যাবেন৷

১১. তারপর আপনি যে ডকুমেন্টস স্ক্যান করেছেন তার স্ক্যানকপিটি আপলোড করবেন।

১২. উপরের ১১ নং এর ধাপ সম্পন্ন হলে টাকা চাওয়া হবে তখন আপনাকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে  টাকা ডিপোজিট করতে হবে৷

বিদ্রঃ ডিপোজিট করবেন কোন নাম্বারে এটা অনেকে জানেন না ভুল করে বসেন তাদের কে বলতেছি,  আপনার NID card এর যে প্রোফাইল রয়েছে এবং সেখানেই নাম্বার দেখতে পাবেন সেই নাম্বারে টাকা ডিপোজিট করতে হবে।    ১৩. তারপর আপনার আবেদন পত্র সংশোধন হয়েছে কিনা অথবা আবেদন পত্রের যেসকল তথ্য সংশোধন করতে চান তার একটি বিবরণী দেওয়া হবে এবং তা দেখে নিয়ে আপনি সাবমিট করবেন৷

১৪. আবেদন পত্রটি আপনার কাছে সংগ্রহ করে রাখবেন এবং পরবর্তীতে Sms আসলে আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রটির তথ্য সংশোধন করা হয়েছে কিনা। সংশোধন হলে তা নিকটস্থ অফিস থেকে সংগ্রহ করবেন ।

একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা যদি আপনার কার্ডটি সংশোধন করা সম্ভব না হয় ও তার সাথে যদি অন্য কোনো ডকুমেন্টস চাওয়া হয় তাহলে আপনাকে Sms করে জানিয়ে দেওয়া হবে।

ধন্যবাদ । আশাকরি আপনি উপকৃত হবেন। পোস্টটটি পড়ে উপকার পেলে সবার সাথে শেয়ার করবেন এবং কোকিলবিডির সাথেই থাকবেন। আমরা সহজ ভাবে সকল ধরনের টিপস্ সহ অনেক কিছু আপনাদের জন্য নিয়মিত শেয়ার করবো ।

আপনি যদি জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করার সময় না বুঝেন কিংবা সমস্যায় পড়েন তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন। আমরা আপনাকে সাহায্য করবো।

svg156

Leave a reply